মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁর নিজ হাতে তৈরী মসজিদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে সড়ক যোগে শিবপুর
শাহ্ সুফি হযরত মাওলানা মো: ইলিয়াছ শাহ্ (র:) এর দরবার শরীফ। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার গোকর্ণঘাট লঞ্চঘাট হইতে লঞ্চযোগে নবীনগর লঞ্চ ঘাটে নেমে নবীনগর করিমশাহ মাজারে রিক্সাযোগে বগডহর গোদারাঘাট যাইতে হইবে।
সলিমগঞ্জ কলেজ নবীনগর হতে সি এন জি বা মটর বাইক এবং বর্ষাকালে নৌকা যোগে ।
এমপি টিলা নবীনগর হতে লঞ্চে আসা যাওয়া করা যায় এবং নরসিংদী হতে লঞ্চে আসা যাওয়া করা যায় ।
শ্রীঘর মঠ শ্রীঘর মঠ- উক্ত মঠটি আনুমানিক ১৯৪১-৪২ খ্রীঃ জমিদার রাজ চন্দ্র নাথ নির্মান করেন । এই পরিবারের অলঙ্গ নাহাকে বৃটিশ সরকার রায় বাহাদুর হিসাবে খেতাব দিয়েছিলেন । উক্ত জমিদার পরিবারের উদ্যোগে শ্রীঘর করুনাময়ী দাতব্য চিকিৎসালয়টি স্থাপিত হয় । বর্তমানে এটি শ্রীঘর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র হিসাবে বিদ্যমান আছে ।
আহাম্মদপুর মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিসৌধ নবীনগর হতে লাউরফতেপুর সি এন জি মাধ্যমে যাওয়া যায়।
বাড়িখোলা তঞ্জু মৌলভির মাজার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় ।
গনিশাহ মাজার শরীফ যোগাযোগ ব্যবস্থাঃ ১৯ নং বড়িকান্দি ইউনিয়ন ভবনটি বর্তমানে গনিশাহ (রঃ) মাজার সংলগ্ন থোলস্নাকান্দি গ্রামে অবস্থিত । নবীনগর থেকে সি,এন,জি লঞ্চ এবং ঢাকা ও নরসিংদী থেকে লঞ্চ যোগে আসা যাওয়া করা যায় ।
খাতাবাড়িয়ার রহমানিয়া দরবার শরীফ ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যায় ।
১০ কৈবর্তবাড়ী ও মিস্ত্তর বাড়ীর মঠ কৈবর্তবাড়ী ও মিস্ত্তর বাড়ীর মঠ নারই, পূর্ব পাড়া
১১ রাধিকা-নবীনগর মহাসড়কে তিতাস নদীর ব্রীজ রাধিকা-নবীনগর মহাসড়কের উপর নির্মিত এই ব্রীজটি আশুগঞ্জ-ভৈরব সেতুর পর পরই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সবচেয়ে বড় সেতু। ব্রীজ দেখতে এবং বিকেল বেলায় হাওয়া খেতে প্রতি দিন অনেক লোকজন এখানে আসে । ব্রীজটির পূর্ব পাড়ে রয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা বার আউয়ালিয়া দরবেশগনের নামে ধন্য সুপরিচিত বার আউলিয়ার বিল । যার ডাক নাম ‘‘বার আইল্লার বিল’’। তার পশ্চিম পাড়ে রয়েছে ব্রাহ্মণহাতা গ্রাম হয়ে সূর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁর জন্মভূমি শীবপুর ।
১২ হযরত পীর সৈয়দ দয়াল বাবা ফিরোজ শাহ্ (রঃ) এর মাজার যাতায়াতঃ নবীনগর উপজেলা সদর বাসস্ট্যান্ড হতে বাস/সিএনজি যোগে জিনদপুর বাজার । ভাড়ার হার - ১৫-২০ টাকা (জনপ্রতি)
১৩ দয়াময় মন্দির যাতায়াতঃ নবীনগর উপজেলা সদর বাসস্ট্যান্ড হতে বাস/সিএনজি যোগে জিনদপুর বাজার । ভাড়ার হার - ১৫-২০ টাকা (জনপ্রতি)
১৪ সতীদাহ মন্দির উপজেলা সদর হতে নৌকা দিয়ে (ভাড়া ১৫/-) মেরকুটা বাজারে নেমে রিক্সা দিয়ে (২০ টাকা ভাড়া) মন্দিরে আসা যায় ।
১৫ রছুল্লাবাদ খান বাড়ির দিঘিরপার উপজেলা সদর থেকে সড়ক পথে।
১৬ নাটঘর শিবমন্দির উপজেলা হতে লঞ্চ, ট্রলার ও নৌকা যোগে নাটঘর শিবমন্দির
১৭ মহর্ষি মনোমোহন দত্ত আশ্রম ঢাকা থেকে কোম্পানীগঞ্জ হয়ে সাতমোড়া বাজার থেকে মহর্ষি মনোমোহন দত্ত আশ্রম।