মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

১১নং কালীপুর রেজিঃ প্রাঃ বিদ্যালয়

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

একতলা ভবন ২টি,মোট শ্রেণী কক্ষ-৬টি, একটি অফিস কক্ষ, ১৮১জন শিক্ষার্থীকে ৪জন শিক্ষক দ্বারা পাঠদান কর্মসূচী চলছে।

১-১-১৯৭৬ইং

ইতিহাসঃ প্রথমে একটি দু’চালা টিনের ঘর ও কাঁচা ভিটি ছিল। পরে আমরা ৪জন শিক্ষক ও গ্রামের সকলে মিলে একটি চৌচালা টিনের ঘর তৈরি করে বিদ্যালয়ে পাঠদান চালায়। তারপর কালীপুর গ্রামের জনাব জববর আলী ও কমর উদ্দিন সাহেবের দানকৃত ৩৫(পয়ত্রিশ) শতক জমির উপর এ বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়।

২৮-৬-১৯৯০ইং সনে বিদ্যালয়টি রেজিষ্ট্রেশন হয়।

১০-০৪-১৯৯৪ইং সনে ৪(চার) কক্ষ বিশিষ্ট একতলা ভবন তৈরি হয়।

২০১০/২০১১ইং সনে পূর্ণ নির্মাণ করা হয়। তিন কক্ষ বিশিষ্ট একটি একতলা ভবন তৈরি হয়। যার বাস্তবায়নে এল.জি.ই.ডি, নবীনগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
আ: বারিক সরকার 0 barik1956@yahoo.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা(শ্রণী ভিত্তিক)ঃ

     ২০১২ইং    ১ম       ২য়       ৩য়      ৪র্থ       ৫ম

                   ৬২       ৪১       ৩৩      ২৫       ২০

৭০%

বিগত ৫ বছরের সমাপনী পরীক্ষার ফলাফল

   সন         

ডি.আর.ভক্ত                         ছাত্র-ছাত্রী              

পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী

পাশের সংখ্যা

  ২০০৭   

   ১৯

          ১৬

  ১৩

  ২০০৮

   ২১

          ১৪

   ১০

  ২০০৯

   ১১

          ১০

     ৭

  ২০১০

   ১৬

          ১১

     ৬

  ২০১১

   ১৬

          ১৪

   ১৩

অর্জনঃ

       সন

    ট্যালেন্টফুল

       সাধারণ

    ২০০৭

      -

      -

 

    ২০০৮

     -

      -

    ২০০৯

     -

      -

    ২০১০

     -

       -

    ২০১১

     -

       -

ভবিষ্যত পরিকল্পনাঃ বিদ্যালয়ের পাঠের মান  উন্নয়ন ও সমাপণী পরীক্ষায় পাশের হার ১০০% উন্নীত করণ। পাথমিক শিক্ষাচক্র শতভাগ নিশ্চিত করণ। শিখন- শিখানো কার্যাবলী লিখিত করণ।

যোগাযোগঃ স্বাভাবিক (দূর্গম)। ইব্রাহিমপুর থেকে পায়ে হেটে যেতে হয়।