মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

বড়াইল হোসাইনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

প্রতিষ্ঠানের সংক্ষিপ্ত বর্ণনাঃপ্রতিষ্ঠানটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার বড়াইল ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের তিতাস নদীর উত্তর তীরে এবং পাগলা নদীর পূর্ব পার্শ্বে ডি.সি রোডের দুই পার্শেব, অবস্থিত প্রতিষ্ঠানটির সম্মূখে একটি খেলার মাঠ রয়েছে। মাঠের দক্ষিন পাশে রয়েছে তিতাস নদী। বিদ্যালয়ে সবধরনের খেলাধুলার ব্যবস্থা রয়েছে, যেমন-ক্রিকেট, ফুটবল, ভলিবল, ব্যাডমিন্টন ইত্যাদি। ছাত্র/ছাত্রীদের আর্সেনিক মুক্ত বিশুদ্ধ পানি সরবরাহহের জন্য একটি গভীর নলকূপ রয়েছে। এছাড়াও ছাত্র/ছাত্রীদের সুবিদার্থে ১টি আলাদা শৌচাগার রয়েছে। বিদ্যালয়ে অন্যান্য বিদ্যালয়ের তুলনায় মাসিক বেতন ও সেশনচার্জ তুলনামূলকভাবে কম হওয়ার ধনী-গরীব সবশ্রেনীর ছাত্র/ছাত্রী তাদের মৌলিক শিক্ষার সুযোগ পাচ্ছে এবং  গরীব ও মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের বিনা বেতনে অধ্যয়নের ব্যবস্থা রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন জাতীয় দিবস যেমন, স্বাধীনতা দিবস, আমর্ত্মজাতিক মাতৃভাষা দিবস, বিজয় দিবস সহ আরো অন্যান্য দিবস নিয়মিত ভাবে উদযাপন করে আসছে।

১৯২০

প্রতিষ্ঠানের সংক্ষিপ্ত ইতিহাসঃব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার অমর্ত্মগত বড়াইল গ্রামে অবস্থিত বড়াইল হোসাইনিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ১৯২৭ খ্রিস্টাব্দে যোগাযোগ বিহীন, নদী ঘেরা এক প্রত্যমত্ম অঞ্চলে বিশিষ্ট সূফী ও সমাজসেবক আলহা্জ্ব মোহাম্মদ হোসাইন চিশতী এবং মোঃ সিরাজুল হক চিশতী সাহেব এর দানে এবং প্রতিষ্ঠানটি প্রথম নাম বড়াইল এমি স্কুল নামে পরিচিত ছিল তারপর এলাকাবাসীর সহযোগিতায় পৃষ্ঠপিশকতায় হযরত খাজা সৈয়দ শাহ আবু মোঃ ওয়াছেক চিশতী আল হক সাহেব সহকারী শিÿকতা দানের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয় বড়াইল হোসাইনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়। উক্ত সময় হইতে জনাব মহিউদ্দিন আহম্মদ প্রধান শিÿক হিসাবে কর্তব্যরত ছিলেন। বর্তমানে মোহাম্মদ আলমগীর প্রধান শিÿক হিসাবে দায়িত্ব পালন করিতেছেন। এছাড়া আরও ০৮জন শিÿক/শিÿÿকা০১জন তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারীর ও ০২জন চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী বিদ্যালয়ের দায়িত্ব পালন করিতেছেন। বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষার শাখা খোলার ও পাঠদানের অনুমতি সহকারে  এস.এস.সি পরীক্ষায় ছাত্র/ছাত্রী প্রেরণের অনুমতি লাভ করে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি একটি পূর্ণাঙ্গ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় হিসাবে সুনামের সাথে পরিচালিত হয়ে আসছে।

 

স্কুলের ধরণঃমাধ্যমিক। মানবিক, বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিÿা তিন গ্রম্নপে বিভক্ত। সর্ব নিমণ ৬ষ্ঠ হইতে ১০ম শ্রেণী পর্যমত্ম চালু রহিয়াছে। বিদ্যালয়টি বেসরকারী ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত এবং সহ শিÿা কার্যক্রম রহিয়াছে।

 

বিদ্যালয়টির স্বীকৃতি প্রাপ্তঃবিদ্যালয় নিমণ মাধ্যমিক হিসাবে ০১/০১/১৯৫২ইং তারিখে ১ম স্বীকৃতি প্রাপ্ত। মাধ্যমিক বিদ্যালয় হিসাবে ১ম স্বীকৃতি ০১/০১/১৯৭২ সনে লাভ করে এবং সর্ব শেষ স্বীকৃতি ৩১/১২/২০১৫ইং সনে শেষ হইবে। বিদ্যালয়টি মাধ্যমিক সত্মওে এমপিও ভুক্ত যাহার এমপিও ভুত্তির তারিখ ০১/১২/১৯৮৪ইং, স্কুলটি গ্রামীণ এলাকায় অবস্থিত ভৌগলিক অবস্থায় হাওড় বিল অঞ্চল।

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
মোহাম্মদ আলমগীর ০১৯১৪৭৩৯৮৬৪ uisc.barail@yahoo.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

শ্রেণী

ছাত্র/ছাত্রী মোট

৬ষ্ঠ

১২৯

৭ম

৯২

৮ম

৯৭

৯ম

৪০

১০ম

৩৫

সর্বমোট

৩৯৩ জন

90%

 

স্কুলের কমিটির সম্মর্কিত তথ্যঃ ম্যানেজিং কমিটি দ্বারা পরিচালিত। যাহার অনুমোদন তারিখ ০৮/০৭/২০১০ইং তারিখ যাহার মেয়াদ উত্তীর্ণেও তারিখ ২১/০৭/২০১২ইং। মোট সদস্য সংখ্যা মোট সদস্য সংখ্যা ১২জন মহিলা সদস্যা সংখ্যা-২জন। উক্ত কমিটির সভাপতি জনাব খাজা নাজিমুদ্দিন চিশতী নান্ন ফকির।

এস.এস.সি পরীÿা ফলাফলঃ২০১০ইং মোট পরীÿার্থী ২৪জন। জিপিএ+ ১জন, জিপি এ- ১জন, জিপি এ

- ৩জন, জিপি -এ(-) ১জন, জিপি বি- ৫জন, জিপি সি- ৯জন। মোট- ১৯জন। পাশের হার ৬৫.৫২%। ২০১১ইং মোট পরীÿার্থী ৪১জন। জিপিএ(+)- ২জন, জিপি এ- ১০জন, জিপি এ (-)- ৭জন, জিপি -বি(-) ২জন, জিপি সি- ১২জন, জিপি ডি- ১জন। মোট- ৩৪জন। পাশের হার ৮৬.৮৮%।

শিÿাগত যোগ্যতা ভিত্তিক শিÿক সংখ্যাঃএস.এস.সি-১ম বিভাগ৪, ২য় বিভাগ ২, ৩য় বিভাগ ২, এইচএসসি ১ম বিভাগ নেই, ২য় বিভাগ ৬জন, ৩য় বিভাগ ২জন, সণাতক ১ম বিভাগে নাই, ২য় বিভাগে ৬জন, ৩য় বিভাগ ১জন, সণাতক সম্মান ১জন, এমএ-১জন।

 

প্রতিষ্ঠানের প্রশিÿক ভিত্তিক শিÿক সংখ্যাঃ বিএড-৬, বিপিএড-১, এমএড-১।

প্রতিষ্ঠানের অর্জনঃপ্রতিষ্ঠানটি বিগত ৫ বৎসর যাবত এই প্রত্যমত্ম এলাকায় শিক্ষা বিসত্মারে বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে। বর্তমানে উক্ত প্রতিষ্ঠানটি এলাকার শিক্ষার মান, পরিবেশ, নিরক্ষতা দূরিকরণ, সচেনতা বৃদ্ধিসহ এবং উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে গুরত্বপূর্ণ অবদান রাখছে।

প্রতিষ্ঠানের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাঃভবিষ্যতে উক্ত প্রতিষ্ঠানটি কলেজে উন্নতি করনের পরিকল্পনা রয়েছে। এছাড়াও অত্যাধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে মাল্টি প্রজেক্টরের সাহায্যে কম্পিউটারাইজ শ্রেণী কক্ষ এবং টেলিকনফারেন্স এর মাধ্যমে শিক্ষা দেওয়ারও পরিকল্পনা রয়েছে। অদূর ভবিষ্যতে বিদ্যালয়ে একটি অত্যাধুনিক অডিটিউরিয়াম, একটি গবেষণাগার এবং বিদ্যালয় সংলগ্ন একটি মসজিদ, একটি কলেজ নির্মাণ করার পরিকল্পনা রয়েছে।

যোগাযোগঃ

প্রধান শিক্ষক

মোহাম্মদ আলমগীর

বড়াইল হোসাইনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়

গ্রাম+ডাকঘর-বড়াইল

উপজেলা-নবীনগর, জেলা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

মোবাইল-০১৯১৪৭৩৯৮৬৪।

এস.এস.সি পরীÿা ফলাফলঃ২০১০ইং মোট পরীÿার্থী ২৪জন। জিপিএ+ ১জন, জিপি এ- ১জন, জিপি এ

- ৩জন, জিপি -এ(-) ১জন, জিপি বি- ৫জন, জিপি সি- ৯জন। মোট- ১৯জন। পাশের হার ৬৫.৫২%। ২০১১ইং মোট পরীÿার্থী ৪১জন। জিপিএ(+)- ২জন, জিপি এ- ১০জন, জিপি এ (-)- ৭জন, জিপি -বি(-) ২জন, জিপি সি- ১২জন, জিপি ডি- ১জন। মোট- ৩৪জন। পাশের হার ৮৬.৮৮%।